Accessibility links

Breaking News

ইউক্রেনে রাশিয়ার নির্যাতনের বিরুদ্ধে ন্যায়বিচারের সন্ধানে


খেরসনে রাশিয়ার সামরিক হামলার পরের দৃশ্য

ইউক্রেনে রাশিয়ার নির্যাতনের জন্য ন্যায়বিচার ও জবাবদিহিতার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।

ইউক্রেনে রাশিয়ার সর্বাত্মক আক্রমণটির নবম মাস পর্যন্ত রাশিয়ার সৈন্যরা হাজার হাজার বেসামরিক মানুষজনকে নিহত বা আহত করেছে; ইউক্রেনের অন্তত ১ কোটি ৩০ লক্ষ মানুষকে তাদের ঘরবাড়ি ছেড়ে পালাতে বাধ্য করেছে; মৌলিক পানি ও বিদ্যুৎ সরবরাহের প্রয়োজনীয় অবকাঠামোতে বোমাবর্ষণ করেছে; হাসপাতাল, বিদ্যালয়, ও অ্যাপার্টমেন্ট ভবনে আঘাত হেনেছে; এবং ঐতিহাসিক শহরগুলোকে ধ্বংসস্তুপে পরিণত করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রকের বৈশ্বিক অপরাধ সংক্রান্ত ন্যায়বিচার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত, ড. বেথ ভ্যান শাক বলেন যে, ইউক্রেনের বিরুদ্ধে আগ্রাসনটির সাথে ছিল, রাশিয়ার বাহিনী মোতায়েন হওয়া প্রতিটি অঞ্চলে নিয়মতান্ত্রিক উপায়ে সংঘটিত যুদ্ধাপরাধ। “হেফাজতে থাকা বেসামরিক মানুষ ও যুদ্ধবন্দিদের উপর নির্যাতন এবং সেই অপরাধগুলো ধামাচাপা দেওয়ার প্রচেষ্টা লক্ষ্য করছি আমরা।”

রাষ্ট্রদূত ভ্যান শাক বলেন, “আমাদের কাছে এমন প্রতিবেদন রয়েছে যে মানুষজনকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার মত করে হত্যা করা হচ্ছে, তাদের হাত বেধে রেখে। আমাদের কাছে এমন মৃতদেহ রয়েছে যেগুলোতে নির্যাতনের চিহ্ন রয়েছে। আমাদের কাছে লিঙ্গভিত্তিক সহিংসতার ভয়াবহ বর্ণনা রয়েছে, যার মধ্যে নারী ও শিশুদের বিরুদ্ধে যৌন সহিংসতাও রয়েছে।” ইউক্রেনের প্রসিকিউটর জেনারেলের দফতর ইতোমধ্যেই এমন হাজার হাজার ঘটনা চিহ্নিত করেছে যেগুলোকে যুদ্ধাপরাধ হিসেবে গণ্য করা যেতে পারে।

রাশিয়ার সরকারও ইউক্রেনের হাজার হাজার নাগরিককে বাছাই অভিযানের উদ্দেশ্যে এক বিশাল আন্তঃদেশীয় স্থাপনায় নিয়ে গিয়েছে। এমন বিশ্বাসযোগ্য প্রতিবেদন রয়েছে যেগুলোতে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতনের বর্ণনা দেওয়া হয়েছে, যেই নির্যাতনের মধ্যে এমন অভিযানের অংশ হিসেবে বিচারবিহীন হত্যাকাণ্ডও রয়েছে, এবং রয়েছে ইউক্রেনের বেসামরিক মানুষজনকে জোরপূর্বক স্থানান্তরিত করা, যাদের মধ্যে ইউক্রেনের এমন হাজার হাজার শিশু রয়েছে যাদেরকে অপহরণ করা হয়েছে এবং দত্তক দেওয়ার মাধ্যমে জোরপূর্বক রুশ পরিবারগুলোতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

এই প্রতিবেদনগুলো, যেসব স্থানে রুশ বাহিনী নিযুক্ত আছে সেসব এলাকায় নির্যাতনের এক উদ্বেগজনক চিত্র তুলে ধরে। এমন নির্যাতন চেচনিয়া, সিরিয়া, ও জর্জিয়ায় রাশিয়ার পূ্র্বের সামরিক অভিযানগুলোর সময়ে হওয়া প্রতিবেদনগুলোর সাথেও মিলে যায়।

ইউক্রেনে নির্যাতনের তদন্ত করতে বেশ কিছু সংখ্যক আন্তর্জাতিক প্রচেষ্টাকে যুক্তরাষ্ট্র সমর্থন করছে। এর মধ্যে রয়েছে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের চলমান তদন্তগুলো। ইউক্রেন আদালতটির এখতিয়ারের বিষয়ে সম্মতি প্রদান করেছে। এছাড়াও, ইউক্রেন বিষয়ে জাতিসংঘের একটি কমিশনের তদন্তও রয়েছে। একইসাথে রয়েছে জাতিসংঘের মানবাধিকার পর্যবেক্ষণ মিশনটি। ইউরোপীয়রা ইউরোজাস্ট নেটওয়ার্কের মাধ্যমে একটি যৌথ তদন্তকারী দল গঠন করেছে। ইউরোজাস্ট নেটওয়ার্কটি সাম্প্রতিক সময়ে তাদের বিধিমালার খসড়া প্রণয়ন ও সংশোধন করেছে, যাতে করে তারা আন্তর্জাতিক অপরাধ কমিশনের জন্য একটি প্রমাণ সংরক্ষক হিসেবে কাজ করতে পারে। এছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র ইউক্রেনের প্রসিকিউটর জেনারেলের দফতরের প্রচেষ্টাগুলোতেও জোরালো কারিগরী সহায়তা দিচ্ছে, যাতে করে ইউক্রেনে রাশিয়ার নির্যাতনের বিষয়গুলো নথিবদ্ধ করা ও তদন্ত করার ক্ষেত্রে দফতরটির চলমান প্রক্রিয়াটিতে সহায়তা করা যায়। এই প্রচেষ্টাগুলো পরস্পর পরিপূরক ও গুরুত্বপূর্ণ।

ইউক্রেনে রাশিয়ার নির্যাতনের বিষয়ে জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার অপরিহার্যতা সম্পর্কে বিশ্ব ঐক্যবদ্ধ।

[এই সম্পাদকীয়তে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের মতামত প্রতিফলিত হয়েছে]

XS
SM
MD
LG