Accessibility links

Breaking News

ইন্দো-প্রশান্তমহাসাগরীয় অঞ্চলে নিয়ম ভিত্তিক শৃঙ্খলাকে জোরালো করতে হবে


সিঙ্গপুরে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন ( এ এফপি)

যুক্তরাষ্ট্রের  প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন সিঙ্গাপুরে ভাষণ দানকালে ঘোষণা করেন  মহামারীর প্রাদুর্ভাব সত্ত্বেও ইন্দো প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল পূণ:নির্মাণ করতে এবং আরো শক্ত ও আইনভিত্তিক আন্তর্জাতিক শৃঙ্খলাসহ উজ্জ্বল ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যেতে প্রস্তুত রয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন সিঙ্গাপুরে ভাষণ দানকালে ঘোষণা করেন মহামারীর প্রাদুর্ভাব সত্ত্বেও ইন্দো প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল পূণ:নির্মাণ করতে এবং আরো শক্ত ও আইনভিত্তিক আন্তর্জাতিক শৃঙ্খলাসহ উজ্জ্বল ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যেতে প্রস্তুত রয়েছে।

প্রতিরক্ষামন্ত্রী অস্টিন বলেন, “ আমি নিশ্চিত আমাদের যৌথ প্রয়াসে ইন্দো প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল আবার সেই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে সক্ষম হবেI তিনি বলেন, “ আর এর জবাব হচ্ছে ৩টি উপাদান, যার সবগুলিই অংশীদারিত্বের সঙ্গে গভীরভাবে সম্পৃক্তI

প্রথমেই, সবচাইতে জরুরি কাজটি হবে পুনরুদ্ধার। তিনি বলেন, “ কভিড সংক্রমণের বিরুদ্ধে আমাদের লড়াইকে দ্বিগুণ বাড়াতে হবে এবং আরো নিরাপদ, স্বাস্থ্যকর এবং আরো সমৃদ্ধশালী ভবিষ্যৎ গড়তে হবে” I

প্রতিরক্ষামন্ত্রী অস্টিন বলেন, দ্বিতীয়ত আমাদেরকে আরো সামনের দিকে তাকাতে হবে এবং আমেরিকার নিরাপত্তার মূল বিষয় হিসেবে প্রতিরোধের ওপর জোর দিতে হবেI তিনি বলেন, বহু দশক ধরে, “সংঘাত পরিহারে এবং স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে বহু দশক ধরে আমরা সক্ষমতা , আমাদের উপস্থিতির মাধ্যমে প্রয়োজনীয় সম্পর্ক রক্ষা করে চলেছি

নতুন নতুন হুমকি এবং উন্নততর প্রযুক্তি সমর কৌশলের গতি ও আকৃতিকে পরিবর্তন করছে। প্রতিরক্ষামন্ত্রী অস্টিন বলেন, “ একবিংশ শতাব্দীর যে নুতন চিন্তাধারায় আমরা কাজ করছি, তাকে আমি বলবো সম্বনিত প্রতিরোধ ব্যবস্থা”। যার অর্থ, আমাদের বর্তমান সামর্থকে ব্যবহার করা এবং নতুন সক্ষমতা গড়ে তোলা এবং নতুন ও নেটওয়ার্ক ভিত্তিক পন্থায় তা প্রয়োগ করা।

তৃতীয়ত, প্রতিরক্ষামন্ত্রী অস্টিন বলেন, যুক্তরাষ্ট্র একই সঙ্গে “ 'তাইওয়ান রিলেশনস এক্ট' এবং এক-চীন নীতির সঙ্গে সঙ্গতি রেখে, তাইওয়ানের নিজের ক্ষমতা বৃদ্ধি, হুমকি ও নিগ্রহ দমনে প্রস্তুতি এবং আমাদের প্রতিশ্রুতি সমুন্নত রাখতে তাইওয়ানের সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেI

প্রতিরক্ষামন্ত্রী, অস্টিন বলেন, তাইওয়ানের সঙ্গে আমাদের সহযোগিতামূলক অংশীদারিত্ব, বেইজিংয়ের পদক্ষেপের সম্পূর্ণ বিপরীতে, যা এই অঞ্চলকে অস্থিতিশীল করে রেখেছেI তিনি বলেন, “আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী , বেইজিংয়ের তরফে দক্ষিণ চীন সাগরের বিশাল এলাকার দাবী করার কোনোই ভিত্তি নেইI

দুর্ভাগ্যবশত শান্তিপূর্ণভাবে বিরোধ নিষ্পত্তিতে বেইজিংয়ের আগ্রহ এবং আইনের শাসনের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন এই জলসীমায় আমরা দেখছি নাI

লয়েড অস্টিন বলেন তাঁর কথায় ," আমরা ভারতের বিরুদ্ধে দেখেছি তাদের আগ্রাসন, তাইওয়ানের বিরুদ্ধে অস্থিতিশীল সামরিক তৎপরতা এবং নানা ধরণের বল প্রয়োগ এবং শিনজিয়াংয়ে উইঘুরের মুসলমানদের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা প্রত্যক্ষ করেছিI

প্রতিরক্ষামন্ত্রী অস্টিন বলেন, “আমাদের স্বার্থ হুমকির মুখে পড়লে আমরা কুন্ঠিত হবো না । তবে আমরা কোনো ধরণের সংঘর্ষও চাই না। আমাদের চূড়ান্ত লক্ষ্য হচ্ছে একটি মুক্ত ও অবাধ ইন্দো- প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল গড়ে তোলা, যেখানে অংশীদারিত্ব, সমৃদ্ধি ও সাফল্য হবে সুদূর প্রসারিতI আমরা বিশ্বাসী যে একত্রিত হয়ে আমরা আমাদের শিশুদের জন্য গড়বো এক উন্নততর ও আরো সম্ভাবনাময় ভবিষ্যৎ”।

XS
SM
MD
LG